সর্বশেষ সংবাদ:
জগন্নাথপুরে মৃদু ভূমিকম্প অনুভূত হয় জগন্নথপুরে ডাকাতি ও মাদক মামলার ওয়ারেন্টভুক্ত আসামী গ্রেফতার জগন্নাথপুরে মাসুম আহমদের হত্যাকারীদের অতিসত্ব গ্রেফতারের দাবিতে মানববন্ধন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও স্ত্রী মেলানিয়া কোভিড-১৯ রোগে আক্রান্ত ফ্রান্সে জঙ্গি হামলার আশঙ্কায় আইফেল টাওয়ার! পাকিস্তান- ধর্ষণ-যৌন অপরাধের সাজা নপুংসকতা বা ফাঁসি, দাবি ইমরানের ক্যালিফোর্নিয়ার আরও ভয়ংকর দাবানল, দৈনিক আগুন ছড়াচ্ছে ২৫ মাইল! মৃত ১১ আরও এক জন নিরস্ত্র কৃষ্ণাঙ্গকে পিছন থেকে গুলি করল মার্কিন পুলিস! বিশ্বে ৪৩টি দেশের রাষ্ট্রধর্ম মধ্যে,২৮টি দেশের রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম ! করোনাভাইরাস: প্যারিস ও মার্সেইলে ‘ঝুঁকিপূর্ণ অঞ্চল’ ঘোষণা করেছে ফ্রান্স !

“সোনালী ফসলে ভোগান্তি কৃষকদের “

জেপি প্রতিনিধি::তাহিরপুর উপজেলার বিভিন্ন হাওরে বোরো ধানের ভাল ফলন হলেও ভোগান্তিতে পড়েছেন কৃষকরা । বৈশাখের শুরু থেকেই বৈরী বাতাস, বৃষ্টি আর নদীতে পানি বৃদ্ধির ফলে কৃষকরা ধান নিয়ে মাঠে নতুন করে দুশ্চিন্তায় আর ভোগান্তিতে পড়েছেন। কৃষকরা  দিনরাত পরিশ্রম করে দ্রুত সোনালী ফসল ঘরে তুলতে চাইলেও বৃষ্টি আর বৈরী বাতাসের কারনে কুলিয়ে উঠতে পারছেন না। হাওরে কৃষকরা বৃষ্টি আর বৈরী বাতাসের সাথে যুদ্ধ করে নাওয়া-খাওয়া ভুলে কৃষকরা ব্যস্ত ধান তুলতে।

মাটিয়ান হাওরে গিয়ে কৃষক ফারুল খানেঁর সঙ্গে কথা বললে তিনি জানান, এবার বোরো ধানের বাম্পার ফলন হয়েছিল, কিন্তু শিলা বৃষ্টি, বৈরী বাতাস আর পোকায় বেশীর ভাগ ধান নষ্ট হয়ে গেছে। এরপরও যে পরিমাণ ধান হয়েছিল তাতেই বছরের খোরাক হয়ে যেত, কিন্তু ধান কাটার বেপারী নিয়ে পড়েছেন মহাসংকটে। বেপারীদের জন প্রতি ৫শত টাকা দিয়েও পাকা ধান ঘরে তুলতে পারছেন না। ক্ষেত থেকে ধান যা কিছু তুলেছেন তাও আবার রৌদ্রের কারণে শুকাতে পারছেন না। কাঁটা ধান মাঠে বৃষ্টিতে ভিজে নষ্টের উপক্রম হচ্ছে। তেমনি কৃষানীরাও মাঠে ধান শুকাতে রোদের জন্য অপেক্ষা করছেন।

Advertisement

উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা যায়, এ উপজেলার ছোট বড় ২৩টি হাওরের ১৮ হাজার ৩শত ৫৪ হেক্টর জমির মধ্যে ১৭ হাজার ৯শ হেক্টর জমিতে চলতি বছর বোরো ধান চাষ হয়েছে। গত দ্ইু বছর কৃষকরা অকাল বন্যায় ফসল ঘরে তুলতে না পারলেও এ বছর আবহাওয়া অনুকুলে থাকলেও ২শত ৭২ কোটি টাকার ধান কৃষকরা ঘরে তুলতে পারবেন।

উপজেলা চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান কামরুল বললেন, মাটিয়ান ও শনি হাওরের প্রায় ৪০ ভাগ ধান কাটা শেষ হয়ে গেছে। আবহাওয়া ভাল থাকলে আগামী ১৫ দিনের মধ্যে কৃষকরা সোনালি ফসল ঘরে তুলতে পারবেন।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আব্দুস ছালাম জানান, চলতি বছর উপজেলা ২৩টি ছোট বড় হাওরে প্রায় ১৭ হাজার ৯শত হেক্টর জমিতে বোরো ধান চাষাবাদ করা হয়েছে। সব কিছু ঠিক থাকলে এ বছর কৃষকরা পৌনে ৩ কোটি টাকার ধান কৃষকরা ঘরে তুলতে পারবেন। তিনি বলেন, বৈরী আবহাওয়ার কারণে দ্রæত ধান কাটতে পরামর্শ দিলেও কৃষকরা শ্রমিক সংকটের কারনে ধান কাটতে পারছেন না। যা কিছু কেটেছেন তাও আবার রৌদ্র না থাকায় শুকাতে পারছেন না।

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের অপশনে ক্লিক করুন

More News Of This Category



Our Facebook Page


বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস

বাংলাদেশে

আক্রান্ত
সুস্থ
মৃত্যু

বিশ্বে

আক্রান্ত
সুস্থ
মৃত্যু