সর্বশেষ সংবাদ:
জগন্নাথপুরে মৃদু ভূমিকম্প অনুভূত হয় জগন্নথপুরে ডাকাতি ও মাদক মামলার ওয়ারেন্টভুক্ত আসামী গ্রেফতার জগন্নাথপুরে মাসুম আহমদের হত্যাকারীদের অতিসত্ব গ্রেফতারের দাবিতে মানববন্ধন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও স্ত্রী মেলানিয়া কোভিড-১৯ রোগে আক্রান্ত ফ্রান্সে জঙ্গি হামলার আশঙ্কায় আইফেল টাওয়ার! পাকিস্তান- ধর্ষণ-যৌন অপরাধের সাজা নপুংসকতা বা ফাঁসি, দাবি ইমরানের ক্যালিফোর্নিয়ার আরও ভয়ংকর দাবানল, দৈনিক আগুন ছড়াচ্ছে ২৫ মাইল! মৃত ১১ আরও এক জন নিরস্ত্র কৃষ্ণাঙ্গকে পিছন থেকে গুলি করল মার্কিন পুলিস! বিশ্বে ৪৩টি দেশের রাষ্ট্রধর্ম মধ্যে,২৮টি দেশের রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম ! করোনাভাইরাস: প্যারিস ও মার্সেইলে ‘ঝুঁকিপূর্ণ অঞ্চল’ ঘোষণা করেছে ফ্রান্স !

হাওরে পড়ে আছে পাকা ধান: দুশ্চিন্তায় কৃষক

জেপি রিপোর্ট ::সুনামগঞ্জের হাওরে এখনো পড়ে আছে প্রায় অর্ধেক পাকা ধান। হাওরে বিলম্বে পানি নামার কারণে এবার ধানও পেকেছে বিলম্বে। এখন শ্রমিকের অভাব, বজ্রপাত আতঙ্কসহ নানা কারণে হাওরে শ্রমিক সংকট দেখা দিয়েছে। আবহাওয়া অধিদপ্তর কর্তৃক জারিকৃত সতর্কবার্তায় ৩০ এপ্রিল থেকে বৃষ্টি শুরুর কথা জানানো হয়েছিল।

সোমবার সকাল ১১টা থেকে দুপুর পৌনে ৩টা পর্যন্ত টানা বৃষ্টি হয়েছে সুনামগঞ্জে। বৃষ্টিতে সুরমা নদীর পানি ৫ সেন্টিমিটার বৃদ্ধি পেয়েছে। বৃষ্টি অব্যাহত থাকলে নদ-নদী খাল বিল ছাপিয়ে পানি হাওরে প্রবেশ করে পাকা ধান তলিয়ে যেতে পারে এই আশঙ্কা করছেন কৃষকরা। এদিকে বৃষ্টি ও পানি বৃদ্ধি পাওয়ার সুযোগে স্থানীয় দুষ্কৃতিকারীরা হাওরের ফসলরক্ষা বাঁধ কেটে দিতে পারে এই আশঙ্কায় তিনটি উপজেলায় সাধারণ ডায়েরি করেছে উপজেলা ফসলরক্ষা বাঁধের সংশ্লিষ্ট কমিটি।
উল্লেখ্য, গত ২৭ এপ্রিল সুনামগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ড এক সতর্কবার্তা জারি করে দ্রুত ধান কাটার আহ্বান জানিয়েছিল কৃষকদের। এই সতর্ক বার্তার আলোকে স্থানীয় প্রশাসনও বিভিন্ন স্থানে মাইকিং প্রচারণা করেছে।
সুনামগঞ্জ কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের মতে, জেলায় এবার ২ লাখ ২২ হাজার ২৯৪ হেক্টর জমিতে বোরো আবাদ হয়েছে। এ থেকে ৮ লাখ ৭৫ হাজার ৩৫৯ মে.টন চাল উৎপাদন হওয়ার কথা। কৃষি বিভাগের মতে এখন পর্যন্ত প্রায় ৭৫ ভাগ জমির ধান কাটা হয়ে গেছে। বিআর-২৯ ধান পাকতে বিলম্ব হওয়ায় হাওরে এই ধানই পড়ে আছে। তবে কৃষকরা জানিয়েছেন এখন পর্যন্ত তারা অর্ধেক জমির ধান কেটেছেন। ধান বিলম্বে পাকায় এবং যথা সময়ে শ্রমিক না পাওয়ায় এখন সেই অর্ধেক পাকা ধান ক্ষেতে পড়ে আছে। এখন ঝড় বৃষ্টির কারণে সেই ধান হুমকিতে পড়েছে। আবহাওয়া অধিদপ্তরের ভারি বৃষ্টির পূর্বাভাস পেয়ে এখন শঙ্কিত কৃষক। হাওর বাঁচাও সুনামগঞ্জ বাঁচাও আন্দোলনের সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন এ পর্যন্ত ৫০ ভাগ ধান কাটা হয়েছে হাওরে। আবাদকৃত অর্ধেক জমির পাকা ধান এখনো ক্ষেতে রয়ে গেছে বলে জানিয়েছেন সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।
সোমবার সকাল ১০টায় ঝাওয়ার হাওরে গিয়ে দেখা যায় ধান কাটছেন কৃষকরা। তবে আবহাওয়া বিরূপ থাকায় বজ্রপাতের ভয়ে অনেক শ্রমিকই ধান কাটতে আগ্রহী নন। বৃষ্টি শুরু হলে শ্রমিকদের দৌড়ে নিরাপদ আশ্রয়ের খোঁজে আসতে দেখা গেছে।
ঝাওয়ার হাওরের কৃষক মাহতাব আলী বলেন, আমার অর্ধেক জমি ১৫ দিন আগেই ব্লাস্ট রোগে নষ্ট হয়েছে। বাকি জমির ধান এখন পেকেছে। কিছু কাটতে পেরেছি। বেশিরভাগ জমির ধানই এখনো ক্ষেতে পড়ে আছে। বজ্রপাতের ভয়ে এখন শ্রমিকরা ধান কাটতে চায়না বলে জানান তিনি।
হাওর বাঁচাও সুনামগঞ্জ বাঁচাও আন্দোলনের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সালেহিন চৌধুরী শুভ বলেন, আবহাওয়া পূর্বাভাস কেন্দ্র সুনামগঞ্জে ভারি বর্ষণে নদ নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়ে হাওরে পানি প্রবেশের যে আশঙ্কা করেছিল তা সত্য হতে যাচ্ছে। সোমবার অর্ধেক দিনই বৃষ্টি হয়েছে। বৃষ্টি ও বজ্রপাতের কারণে পাকা ধান কাটতে পারেননি কৃষক। তিনি বলেন, আমাদের হিসেবে এখনো হাওরের অর্ধেক জমি কাটার বাকি রয়ে গেছে। কৃষি বিভাগের ৭৫ ভাগ ধান কাটার পরিসংখ্যানকে অতিরঞ্জিত মনে করেন তিনি।
সুনামগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ড সূত্রে জানা গেছে, বৃষ্টিতে পানি বৃদ্ধি পাওয়ার সুযোগ নিয়ে স্থানীয় কিছু দুষ্কৃতিকারী চক্র হাওরের ফসলরক্ষা বাঁধ কেটে দিয়ে মাছ ধরার চক্রান্ত করছে। এই আশঙ্কায় সুনামগঞ্জ সদর, দক্ষিণ সুনামগঞ্জ ও জগন্নাথপুর উপজেলার ফসলরক্ষা কমিটি থানায় সাধারণ ডায়েরি করেছে। বাকি ৮টি থানার সংশ্লিষ্ট কমিটিকেও এই আহ্বান জানানো হয়েছে।
সুনামগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. আবু বকর সিদ্দিক ভূইয়া বলেন, সোমবার সকাল থেকে কয়েক ঘণ্টা বৃষ্টি হয়েছে। এতে সুরমা নদীর পানি ৫ সেন্টিমিটার বৃদ্ধি পেয়েছে। তিনি বলেন, পানি বৃদ্ধি এবং বৃষ্টির কারণে হাওরের ফসলরক্ষা বাঁধ কেটে দুর্বৃত্তরা মাছ ধরার সুযোগ নিতে পারে এই আশঙ্কায় আমরা প্রতিটি থানায় সাধারণ ডায়েরি করে রাখার পরামর্শ দিয়েছি সংশ্লিষ্টদের। তিনি বলেন, বন্যা পূর্বাভাস কেন্দ্র ৩০ এপ্রিল থেকে যে সতর্কতা জারি করেছিল তার আলামত পাওয়া যাচ্ছে। তাই অবিলম্বে কৃষকদের ধান কেটে ঘরে তোলার আহ্বান জানান তিনি।
তবে বেসরকারি হিসেবে ক্ষতির পরিমাণ প্রায় ২০ হাজার হেক্টর হবে বলে জানিয়েছেন কৃষকরা। কৃষি বিভাগের মতে এ মওসুমে ২ লাখ ২২ হাজার ২৯৪ হেক্টর জমিতে বোরো আবাদ হয়েছে। এর মধ্যে উফশী ধান ২৮ ও ২৯ চাষ হয়েছে প্রায় ১ লাখ ৮৫ হাজার হেক্টর। এ বছর বিআর ২৮ ধানেই ব্লাস্ট রোগ ছড়িয়েছে। কৃষি বিভাগের মতে এবছর হাওরে ৮ লাখ ৭৫ হাজার ৩৫৯ মেট্রিক টন চাল উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। যা উৎপাদনের প্রায় অর্ধেক উদ্ধৃত্ত। তবে ব্লাস্টের কারণে ফলনে প্রভাব পড়তে পারে বলে মনে করেন কৃষকরা।

Advertisement
সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের অপশনে ক্লিক করুন

More News Of This Category



Our Facebook Page


বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস

বাংলাদেশে

আক্রান্ত
সুস্থ
মৃত্যু

বিশ্বে

আক্রান্ত
সুস্থ
মৃত্যু